Join 41,649 users and earn money for participation

💔 #ভালোবাসি_হয়নি_বলা02 ❤ ✍ #লেখকঃmahin_al_islam 🆕 #পর্বঃ07

মাহিনঃ কিরকম করে কথা বলতেছি???

আমিঃ আপনার নিশ্চয়ই কোন কিছু হয়েছে নয়তো আপনি আমার সাথে এরকম করে কথা বলতেন না।।।

উনি আমার কথার কোন উত্তর না দিয়ে চুপচাপ বিছানার উপর শুয়ে পড়লেন,,,

আমিও কিছু না বলে চুপচাপ উনার বুকের উপর মাথা রেখে শুয়ে পড়লাম।।

মাহিনঃ এসব কি হচ্ছে আমি কি ঘুমাতে পারবো না??

আমিঃ আমি কি আপনাকে ঘুমাতে বাধা দিয়েছি নাকি আপনি ঘুমিয়ে পড়ো আমিও ঘুমিয়ে পড়ি

মাহিনঃ তাহলে আমার বুকের উপর মাথা রাখছ কেন বালিশ আছে তো বালিশের উপর মাথা রাখো।।

আমিঃ দেখেন বেশি রকম বকবক করবেন না বকবক করলে কিন্তু এর থেকেও অনেক বেশি কিছু করব তখন আবার ঘুমাতে পারবেন না তাই যেটা হচ্ছে হতে দেন।।

মাহিনঃ মকর মুল্লুক পাইছো নাকি যেটা হচ্ছে সেটাই হতে দেবো মাথা সরাও বলতেছি।।

আমি আরো শক্ত করে উনাকে জড়িয়ে ধরে শুয়ে থাকলাম আর কোন কথা বলতেছি উনার সাথে উনি বক বক করতেছে আমি শুনতেছি চুপ করে।। আর ওনার হার্টবিটের স্পন্দন অনুভব করতেছি।। 😁

একসময় অনীহার ম্যানেজমেন্ট চুপচাপ আমাকে জড়িয়ে ধরে শুয়ে পরলেন।

পরের দিন সকাল বেলা,,,,

আমার ঘুমটা ভেঙে গেল আমি চোখ খুলে তাকিয়ে দেখি আমি এখনও উনার বুকের উপর শুয়ে আছি আর উনি আমাকে জড়িয়ে ধরে আছে

আমার খুব ভালো লাগতেছে আমি হতে হবে আমার মাথাটা একটু উঁচু করে উনার মুখের উপর আমার মুখটা নিয়ে গেলাম

আমি অপলক দৃষ্টিতে ওনার মায়াবী মুখের দিকে তাকিয়ে আছি কি সুন্দর লাগতাছে।।

এখন ওনাকে দেখে মনে হচ্ছে একটা নিষ্পাপ বাচ্চা কিন্তু যখন আমার সাথে কথা বলি মনে হয় বাচ্চাদের হাড্ডি

ঘুমিয়ে থাকা মাহিন আর জেগে থাক আমাদের মাঝে আকাশ-পাতাল পার্থক্য এখন মুখটা দেখে মনে হচ্ছে একদম বাচ্চা বাচ্চাদের মত করে ঘুমিয়ে আছে

হঠাৎ উনি নড়েচড়ে উঠলেন।।আর আমাকে অনেক শক্ত করে জড়িয়ে ধরলেন।।

আমি সামলাতে না পেরে আমার ঠোঁটদুটো দিয়ে ওর ঠোঁটের উপর লেগে গেল।।।

যেই আমার ঠোঁট দুটো আমার ঠোটের উপর পড়েছে সারা শরীরে শিহরন বয়ে গেল অন্যরকম এই শিহরন অনুভূতিটা একদম আলাদা।।

উফফফ এখন কি হবে ওনাকে দেখতে দেখতে তো এখন নিজেই ফাঁদে পড়ে গেলাম উঠতে পারতেছি না

আপনি আমাকে ছেড়ে দিচ্ছে না বুঝতে পারতেছি না এখন কি করব উঠতে গেলে অন্যরকম হয়ে যাবে আরো নেতাজি আমাকে এই অবস্থায় দেখতে পায়

তাহলে লজ্জাতে আমি আমার সামনে এসে দাঁড়াতে পারবো না কারন আমার বুকে ওড়না নেই চুলগুলো এলোমেলো হয়ে আছে কেমন জানি দেখাচ্ছে

আমি আসতে আসতে ওনার থেকে মুক্ত হওয়ার চেষ্টা করতেছি কিন্তু যতই চেষ্টা করতেছি তত বিপদে পড়তে চাই একটু নড়তেই উনি আমাকে আরো শক্ত করে জড়িয়ে ধরে

এবার বেশ ভালো করেই বুঝতে পারতেছি আমি অনেক আগেই হয়ে গেছে আর এখন ইচ্ছে করে চোখ বন্ধ করে আছে তাই না দাঁড়াও দেখাচ্ছি

আমি আমার ঠোঁটদুটো না ঠোটে বসিয়ে দিয়ে

কিছুক্ষণ ধরে রাখলাম দেখি উনিই রেসপন্স দিচ্ছে এখন আমি পুরোদমে সিওর যে উনি ঘুমের ভান ধরে আছে।।

তাই আমি ইচ্ছা করেও উনার ঠোঁটে আমি কামার বসিয়ে দিলাম আর উনি আউউউউউসস

বলে আমাকে ছেড়ে দিয়ে চিৎকার করে উঠলেন আর আমি এই সুযোগে উনার হাত থেকে ছাড়া পেয়ে বিছানা থেকে উঠে দৌড়ে বাথরুমে চলে গেলাম।।।

মাহিনঃ কতক্ষণ বাথরুমে থাকতে পারো আমিও দেখে নেবো তুমি কি শুধু বাহিরে আসো আমি এর প্রতিশোধ নিয়ে নেব

আমিঃ আপনি এইরকম ঘুমের ভান ধরেছিলেন কেন তার শাস্তি দিলাম আমি আপনাকে আপনিতো চোখ দুটো খুলে আমাকে দেখতে পারতে তাহলে কি আমি আপনাকে এই শাস্তি দিতাম কিন্তু আপনি তো চোখ বন্ধ করে মজা নিতেছেন তাইতো শাস্তি দিয়েছি

মাহিনঃ এখন তুমি বাহিরে আসো আমি একটু শাস্তি দেবো আর সেটা তোমাকে সহ্য করতে হবে কি মজা

আমিঃ আমি আম্মুর কাছে বিচার দেবো তারপর ছেলেটা আমাকে শেষ করে দিয়েছ

মাহিনঃ হাহাহা কোন লাভ হবে না বৃথা চেষ্টা তারপর তুমি নিজেই লজ্জা পাবে

ধুর এই মানুষটা এরকম কেন কখন কি করে বসে সেটা নিজেও জানেনা আর আমি নিজেও জানিনা

মাঝে মাঝে এমন ব্যবহার করে মনে হয় উনি সবথেকে আমাকে বেশি ভালোবাসে মাঝে মাঝে এমন ব্যবহার করে মনে হয় উনি সবথেকে আমাকেই বেশি ঘৃণা করে।।

আমাকে বুঝতে গেলে আমাকে আরো দুই দুই বার জন্ম নিতে হবে

মাহিনঃ কি হলো একা একা কি বকবক করতেছো বাহিরে আসো তারপর মজা দেখো।।

আমিঃ আমি কিন্তু এবার কান্না করে দেবো আপনি এমন কেন বলুন তো আমাকে শাস্তি দেবেন কেন আপনি দোষ করেছে তাই আমি আপনাকে শাস্তি দিয়েছি আর আমি তো কোন দোষ করিনি যে আপনি আমাকে শাস্তি দিবেন

মাহিনঃ আমি কেমন সেটা আমি নিজেও জানিনা কিন্তু তোমার কাছে কেমন সেটাও জানি না তো তুমি যে তোমাকে একটু শাস্তি দিয়েছো ভালো কথা আমি কিছু বলব না কিন্তু তুমি আমাকে কামড় দিলে কেন কামোর দিয়ে তুমি দোষ করেছ তাই আমি এখন কামোরের বদলে অন্য শাস্তি দেবো।।

আমিঃ কি শাস্তি দিবেন আমাকে ( কাঁদো কাঁদো গলায় কথাটা বললাম)

মাহিনঃ সেটা আমার ব্যাপার কি শাস্তি দেবো তুমি আগে বাহিরে আসো 😁😁

আমিঃ প্লিজ বলুন না কি শাস্তি দেবেন না হলে কিন্তু আমি সত্যিকারের কান্না করে দেব ( সত্যিই কেন জানি আমার খুব কান্না পাচ্ছে আমার ভয় লাগতেছে কিনা কি জানি করে)

মাহিনঃ ওকে কোনো শাস্তি দেবো না তাও কান্না করতে হবে না এখন বাইরে বেরিয়ে আসো ঐখানে থাকলে ঠান্ডা লেগে যাবে ঠান্ডা লেগে গেলে জ্বর আসবে তাহলে আমাদের আজকে তোমার বাবার বাড়ি যাওয়া হবে না

তখন কিন্তু আমাকে কোনো কিছু বলতে পারব না আর কান্না করতে পারবোনা

উনার কথা শুনে বুকে এক বালতি সাহস নিয়ে বেরিয়ে এলাম

বেরিয়ে এসে দেখি উনি রুমে নেই এটা কিভাবে সম্ভব হয় তো আমার সাথে একটু আগে কথা বলল তাহলে এখন রুমে নাই নাকি ওনার আত্মা আমার সাথে কথা বললো

আমি ভয়ে ভয়ে রুমের চারিদিকে তাকিয়ে উনাকে খুজতে লাগলাম

কিন্তু না ওনাকে তো কোথাও দেখতে পাচ্ছি না তাহলে উনি কোথায় উধাও হয়ে গেলে রুমের দরজাটা ভেতর থেকে পড়তো তাহলে উনি কই

হঠাৎ করে পিছন থেকে কেউ আমার চোখ ধরে ফেলল আমি এতটাই ভয় পেয়ে গেছিলাম যে

অনেক জোরে চিৎকার করে উঠলাম কিন্তু চিৎকারে অবস্থা বেরোলো না উনি আমার মুখটা চেপে ধরে রেখেছেন উনার হাত দিয়ে

আমার মুখ থেকে কোন কথা বের হচ্ছে না কারণ ওনার হাত দিয়ে আমার মুখটা চেপে ধরে রেখেছে

আপনি আমাকে পিছন থেকে জড়িয়ে ধরে ওনার থুতনীটা আমার কাধের উপর রাখলাম

আমার ঠোঁটদুটো দিয়ে আমার কানের ললিতে আলতো করে স্পর্শ করে দিল

আমি যেন এক মুহূর্তের জন্য নিস্তব্ধ হয়ে গেছি

আমার সারা শরীর মনে হয় বরফের মত ঠান্ডা হয়ে গেছে

আমার সারা শরীর কাপ্তে লাগল কোন কথা বের হচ্ছে না মুখ দিয়ে

অনেক আলতো করে আমার গলায় কোন তথ্যটা পুসিতরেন্ট এইবার আমি আর ঠিক থাকতে পারলাম না আমার মনে হয় আমি এক দাঁড়িয়ে থাকতে পারব না আমার শরীরে কোন প্রকার শক্তি কাজ করতেছে না

হঠাৎ করে উনি আমার গলা এত জোরে কামড় বসিয়ে দিবে আমি কখনো কল্পনা করতে পারিনি

আমি অনেক জোরে চিৎকার করলাম কিন্তু আওয়াজ বের হোলো না কারণ উনি এক হাত দিয়ে আমার মুখটা চেপে ধরে রেখেছিলেন

মাহিনঃ এটা তোমাকে উপহার দিলাম লাভ বার্ড

কথাটা বলাই টেবিল মার্কা একটা হাসি দিলেন

রাগে সারা শরীর গজ গজ করতে লাগল আমার, ইচ্ছে করতেছে সালারে মাথার ওপর তুলে আছাড় মেরে কোমর ভেঙে ফেলে দেই

কিন্তু আমার ইচ্ছেটা কোনদিন পূরণ হবে না

চলবে........

1
$
User's avatar
@Mdemon456 posted 1 month ago

Comments