Join 100,427 users already on read.cash

লাভ স্টোরি পার্ট #১ম+২য়

7 29 exc
Avatar for Pami
Written by   42
2 years ago

রাইটার ঃদিলরুবা হাসান পামি

আমি সাইরা হোসেন।১বছর হল মাস্টার্স শেষ করেছি।জবে জন্য এখন বিভিন্ন কোম্পানিতে interview দিচ্ছি। কোন

কোম্পানি experience ছাড়া নিতে চায় না।

সবাই বলেনঃ সব ঠিক আছে বাট সরি আমরা আপনাকে নিতে পারব না

আমার দোষ একটাই আমার কোন experience নেই।এভাবে তিনমাস কেটে গেল।আমি এখনও বেকার।একের পর এক interview দিতে দিতে আমি খুব ক্লান্ত।

আশেপাশে মানুষগুলো ভাল অবস্থানে চলে গেছে।আমার সাথে যারা পড়েছে তারা সবাই এখন established। আর আমি interview দিয়েই যাচ্ছি । কাজের কাজ কিছুই হল না।মনে খারাপ করে বারান্দায় বসে আছি।ওদিকে আমার cellphoneটা যে বেজেই চলেছে, সেদিকে খেল ছিল না আমার।আম্মু আমার রুমের পাশে দিয়ে যাচ্ছিলেন কি যেন একটটা কাজে। তিনি লক্ষ্য করলেন আমার ফোনটা বাজছে।

আম্মু :সাইরা মামুনি কোথায় তুমি? ফোনটা ধর মামুনি।কখন থেকে বেজেই চলেছে।

রুমে এসে ফোনটা রিসিভ করার পর বুঝতে পারলাম যে কোম্পানিতে আমার cv জমা দিয়েছিলাম কিছুদিন আগে।আজ তারা আমাকে interview এর জন্য call দিয়েছেন। এতবার rejected হওয়ার পর আবার interview দিতে কার ভাল লাগবে? আপনারাই বলুন।জানি এই জবটাও হবে না।তবুও কেন জানি মনে হচ্ছে আমাকে যেতেই হবে।না হলে অনেক বড় সুযোগ হাত ছাড়া হয়ে যাবে।সকাল ১০টা interview। ১ঘন্টা আগেই বাসা থেকে বের হয়েছি।

রাস্তায় আজকাল যে, traffic jam Uff. যাক বাবা আজ taffic jam ছিল না বলে ৯ঃ২০সে অফিসে পৌছাতে পেরেছি।সেখানে যাওয়ার পর আমাকে বলা হল wait করতে। কেননা interview যারা নিবেন তারা এখনও এসে পৌছাতে পারেন নি। রাস্তায় আটকে পড়ছেন।রাস্তায় নাকি এখন ভীষণ jam.আর তাছাড়া আমি ছাড়া কোন candidateও আসে নি। কি করব বুঝতে পারছি না। এদিকে আমি খুব ক্ষুধা লেগেছে। কি করব ভাবতে ভাবতে ইঠাত মনে পড়লে গেলে অফিসে ক্যান্টিনের কথা। একজনকে জিজ্ঞাসা করায় উনী আমাকে ক্যান্টিন কোনদিকে সেটা দেখিয়ে দিলেন। আমি ক্যান্টনে গিয়ে বসি। দেখতে পাচ্ছি অফিসের staffsও রয়েছেন এখানে।তারা কেউ চা খাচ্ছেন, কেউ কফি, কেউ আবার আমার মত breakfast করে আসেন নি বলে breakfast করে নিচ্ছেন।অফিসের পরিবেশ খুবই শান্ত। আমার কেন যেন feel হচ্ছে আমি ভুলবশত কোন আর্মির ক্যাম্পে চলে আসছি।। আমার পাশের টেবিলে তিনজন বসে আছেন। তারা একে অপরের সাথে কথা বলছেন।তাদের খুব কাছাকাছি বসে আছি তাই তাদের কথাগুলো আমি খুব clearly শুনতে পারছি।

আকাশঃআমাদের বসটা একটা Angry Man। এত রাগি মানুষ হয়?এত Discipline কে Maintain করে?এর আগে ৩জন P.A. job ছেড়েছে। তার torture tolerant(নির্যাতন সহ্য)করতে না পেরে।

রিয়াঃএখন তো আবার P.A. জন্য interview নিচ্ছে।৪নাম্বারের ভাগ্যে কি লেখা আছে কে তা জানে?বেচারী।

আদিবঃবাদ দাও এসব। বসের আসার সময় হয়েছে কিন্তু। তাড়াতাড়ি খাওয়া শেষ করে চল যার যার ডেক্সে ।

বস যদি এসে দেখে যে আমরা আমাদের কাজ বাদ দিয়ে এখানে বসে আড্ডা দিচ্ছি তবে সবগুলোকে চিরদিনের জন্য ছুটিতে পাঠাবেন।

এমন কি করেছেন তাদের বস তাদের সাথে যে বেচারীরা job ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল?আমার সাথে এমন হলে না মজা বুঝতাম।devil man 😡😡মনে মনে বলছে সাইরা।

কিছুক্ষণ পর interview শুরু হল।একে একে সবাই interview দিয়ে বের হয়ে আসছে।সবার মুখের অবস্থা দেখে সাইরার মন হচ্ছে যে, আর্মির ক্যাম্পে ক্যাডারদের training চলছে।Training চলাকালীন সময় ক্যাডারদের যে অবস্হা হয়।আজ interview দিতে আসা সব candidates এরও একই অবস্হা। last এ আমাকে ডাকা হল।আমি ভিতরে প্রবেশ করি। আমাকে কেউ বসতে বলেন না।দাড়ানো অবস্থায় একে একে সবাই প্রশ্ন করা শুরু করলেন। Interview খুব একটা সহজ হল না।খুব ত্যাড়াবাকা প্রশ্ন করছেন সবাই।আমিও ছাড়ার পাএী নই, আমিও সেরকম answer দিচ্ছিInterview যারা নিচ্ছেন উনারা সবাই এখন চুপ করে রয়েছেন। একজন আমাকে লক্ষ্য করে বললেন,

উনী বলছেনঃতুমি এই Attitude নিয়ে আসছো, আমার কোম্পানিতে জব interview দিতে?

আমার বুঝতে আর বাকি নেই যে এই সেই Devil man।

আমি(সাইরা)ঃদেখুন স্যার আমি মানুষ হিসেবে কেমন? সেটা বড় কথা নয়,আমি আপনার বেতন দেওয়া কর্মচারী। so আমার কাজ কেমন সেটা আপনি দেখবেন।আমার personality নয়।

এবার তিনি চেয়ার থেকে উঠে দাড়ালেন।তাকে দেখে মনে হচ্ছে পারলে তিনি আমাকে খুন করে ফেলবেন এই মূহুর্তে ।তিনি রেগে বললেন,

বসঃ কে তোমাকে আমার কোম্পানিতে জব দিয়েছে?কেউ কি দিয়েছে? মিস সাইরা। আর এতবড় সাহস কি করে হয় তোমার, আমার সাথে এভাবে তর্ক করার।আমার সাথে এভাবে কথা বলার সাহস কোথায় থেকে আসছে তোমার?আমার সাথে তর্ক করা তো দূরের কথা আজ পযর্ন্ত কেউ আমার সাথে কথা বলার সাহস পায় নি। আর আজ তুমি সামান্য একটা মেয়ে যে কি না আমার মত এতবড় বিজনেসম্যানকে এভাবে অপমান করছ?how dare u?তুমি কি জান আমি চাইলে এই মূহুর্তে তোমার সাথে কি করতে পারি?

সাইরা যেন ভেবেই নিয়েছে যে তার এই জবটা হবে না। কেননা তার এই attitude দেখার পর এই জব না হওয়াটাই স্বাভাবিক ।কিন্তু এই devil manকে যে সে শিখা দিয়েই ছাড়বে।যা আগে কেউ করতে পারে নি।😂🤣🤣Devil এর মত একটা হাসি দিয়ে বলে,

সাইরাঃবস আপনি হচ্ছেন এই শহরের বড় বিজনেসম্যানদের মধ্যে অন্যতম একজন। আপনার সাথে আমি তর্ক করতে পারি? আর অপমান? ছি!ছি কি বলেন বস আপনাকে আমি আপমান?how🤔🤔 impossible boss.সামান্য একটা মেয়ে আমি।

বসঃদেখ little girl.

সাইরাঃme??😮😮 তাও আবার little girl?? আহারে বেচারার মাথাটা পুরো গেছে।

সাইরা মনে মনে ভাবছে এটা।তার এটা ভেবেই খুব হাসি পাচ্ছে। কিন্তু অনেক কস্টে সে তার হাসিকে control করছে।

বসঃনিজেকে খুব smart আর intelligent ভাবছো তো? Good, very good। তুমি এখন আসতে পার।আমার অনেক কাজ আছে।তোমার সাথে কথা বলে অযথা সময় নষ্ট করতে চাই না আর। সাইরা মুচকি হেসে বলেন,

সাইরাঃyes boss,bye boss

এই বলে সে বের হয়ে যায় কেবিন থেকে।

নিলয় খুবই অবাক হচ্ছে এই ভেবে যে জীবনে সে এই প্রথম এমন একজনকে দেখেছে। যে তাকে ভয় পায় না।হ্যা নিলয় হচ্ছে সাইরার সেই devil man।

লাভ স্টোরি

পার্ট #২

সাইরা কোম্পানি থেকে বের হল।সে এখন রাস্তায় হাটছে। তার খুব হাসি পাচ্ছে এটা ভেবেই যে, সে একটু আগে নিলয়ের সাথে কি করেছে?সে কোনভাবেই নিজের হাসিটাকে control করতে পারছে না।রাস্তায় হাটার সময় যে বা যারা রাস্তা দিয়ে যাচ্ছেন তারা সকলেই খুব অবাক চোখে সাইরার দিকে তাকিয়েছেন। তারা হয়তো মনে মনে ভেবেছেন মেয়েটা কি পাগল? সাইরা যেটা বুঝেও না বুঝার মত করে সে গাড়ী ভাড়া করে বাসায় চলে আসে।

কলিংবেল বাজছে।আম্মু তখন কিচেনে কাজ করছেন।কলিংবেলের শব্দ পেয়ে তিনি গেট খুলে আমাকে দেখতে পান। তিনি আমাকে বলেন,

আম্মু ঃসাইরা মামুনি আজকের interview কেমন হল?

আমি(সাইরা)ঃওই আর কি।আগের গুলোর মতই। আমার আর এই জীবনে জব করা হবে না।

আম্মুকে সব detailsএর

বলেছি।তিনি সব শোনার পর আমাকে সান্ত্বনা দিয়ে বললেন,

আম্মুঃ মামুনি টেনশন কর না।আল্লাহর উপর ভরসা রাখ।সব ঠিক হয়ে যাবে।মন খারাপ কর না তো।তুমি fresh হয়ে এসো। কখন বের হয়েছ তুমি।ঘড়িতে এখন বিকাল ৪টা বাজছে,দেখছ তুৃমি?সকালে তাড়াহুড়ায় তো পেটে কিছুই পড়ে নি।চল খেতে।

আমি(সাইরা)ঃওকে আম্মুনি। আমি fresh হয়ে আসি।ওহ তুমি খেয়েছ তো?

আম্মু কিছু বলছে না দেখ সাইরা বলল,

আমি(সাইরা)ঃ হুম, তোমার মুখ দেখেই বুঝেছি যে,তুমি এখনও খাও নি।এমন কর কেন আম্মু?

সাইরা fresh হয়ে আসার পর দুই মা মেয়ে একসাথে lunch করে নেয়।

ঘড়িতে১১ঃ৩০(রাত)বাজছে। সাইরা Earphone এ গান শুনছে।ইঠাত তার ফোনটা বেজে উঠে। unknown number থেকে কল আসে।সে ফোন রিসিভ করে।ফোনের ওপাশে থাকা ভদ্রলোকটি তাকে বললেন,

ভদ্রলোক ঃআপনি সাইরা হোসেন বলছেন?

আমি(সাইরা)ঃজ্বী আমি সাইরা হোসেন বলছি। বলুন কি দরকারে ফোন করছেন?

ভদ্রলোক ঃ আপনি তো দেখছি ঠিক আমার বসের মত। বসের কথার বলার style আর আপনার কথার বলার style তো দেখছি same ।মনে হচ্ছে আমি যেন আমার বসের Female version এর সাথে কথা বলছি। বস তার মত একজনকে পেলেন অবশেষ।Interesting কিন্তু ব্যাপারটা ।

আমি(সাইরা)ঃ ওহ হ্যালো মিষ্টার। এসব কি বলছেন আপনি?(রাগান্বিত কন্ঠে)।

ভদ্রলোক ঃcool down Miss।Oh sorry আমিতো আপনাকে আমার পরিচয় দিতেই ভুলে গেছি।আপনি আজকে যে কোম্পানিতে interview দিতে এসেছিলেন। আমি সেই কোম্পানির Owner নিলয় স্যারের ম্যানেজার, জনি বলছি।কালকে থেকে আপনি অফিসে আসতে পারেন।

আমি(সাইরা)ঃতার মানে আমার জবটা হয়ে গেছে?এই যে মিষ্টার আপনি কি আমার সাথে fun করতে এত রাতে কল দিয়েছেন?😞😞

ভদ্রলোক ঃসাইরা ম্যাম, আপনার কি তা মনে হচ্ছে?

আমি(সাইরা) ঃ আমার কি মনে হচ্ছে সেটা বড় কথা নয়।আর মনে হলেও বা কিছু আসবে কি?

নিলয় স্যার যেমন তার p.A.টাও হয়েছে তেমন।এবার জমবে

ভালই🤣🤣Perfect couple যাকে বলে। মনে মনে এসব ভেবে জনির খুব হাসি পাচ্ছে।কিন্তু সাইরার সামনে সে তার হাসটাকে কোনভাবে control করে। তারপর সে সাইরাকে বলেন,

ভদ্রলোক ঃ ওকে,ওকে।আমি এবার আসল কথায় আসছি। Listen very carefully ,Sir আপনাকে সকাল ৭টায় যেতে বলছেন।আমি আপনাকে তার বাসার ঠিকানা sms এর পাঠিয়ে দিচ্ছি কেমন?

আমি(সাইরা)ঃ😠😠এত সকালে কেউ কি অফিসে যায়?

জনিঃ আপনি কি ভুলে গেছেন যে আপনি বসের P.A.?Soমনে রাখবেন একটা কথা মিস সাইরা এখন থেকে বসের সব কাজ আপনাকেই করতে হবে।এখন আমি রাখছি মিস।Good night Miss,take care.Bye,bye.

ফোন রেখে দেওয়ার পর সাইরা নিজের সাথে নিজে কথা বলছে,

সাইরাঃ Mr. Niloy, you are really a Devil.আমি ঠিক নামই দিয়েছি devil man,devil man😡😡Devil আমার সাথে যদি খারাপ কিছু করেছ তো তোমার কপালে দুঃখ আছে।devil man 😡😡😡রেগে আগুন হয়ে যায় সে।জনির sms এ পাঠানো ঠিকানায় সাইরা পোঁছে যায় পরেরদিন সকালে।নিলয়ের বাড়ি দেখে সাইরা তো খুবই অবাক।সাইরার মুখ থেকে বের হল, wow, so beautiful house.এটা যেন একটা রাজপ্রসাদ। এখানেই সেই devil man থাকে!ভাবা যায়?🤔🤔

সাইরাকে security guard ভিতরে নিয়ে যায়।নিলয় তাদেরকে আগে থেকেই ওর ব্যাপারে বলে রেখেছিল।তারা সাইরাকে নিয়ে সেই placeএর যান যেখানে নিলয় রয়েছে। এইসময় নিলয় তার personal gym এ থাকে। প্রতিদিনের মত আজও সে সেখানেই আছে। নিলয় সাইরাকে দেখে তাদেরকে তার আঙ্গুলের ইশারায় দিয়ে চলে যেতে বলে। তারা তাদের বসের order follow করেন।তারা চলে যাওয়ার সাথে সাথে নিলয় সাইরাকে খুব ভালভাবে দেখতে শুরু করে।তারপর সাইরাকে নিলয় বলল,

নিলয়ঃ কালকে জিমের পোষাক নিয়ে আসবে সাথে করে।আর আমার অফিসে কাজ করতে হলে এই চেহেরা চলবে না।

আমি(সাইরা)ঃ oh hello, what do u mean? এই চেহেরা মানে কি?

সাইরার কথা শুনে নিলয় হেসে বলে,

নিলয়ঃআয়না কি দেখার সময় পাও না তুমি?আয়নাতে নিজেকে দেখতে যদি, তবে বুঝতে আমি কি mean করছি।

আমি(সাইরা)ঃআমি যথেষ্ট ফিট আছি ব--স🙄🙄

নিলয়ঃOh real? তুমি ফিট সাইরা হোসেন? really 🤣🤣🤣(নিলয় হাসছে)।

devil man,you are really a devil. I just hate u.কেন যে এই মানুষটাকে আমি tolerate করছি?কি আর করব? আমার কাছে তো এছাড়া কোন option নেই।একটা ভাল জব না পাওয়া পর্যন্ত এই devil কে আমায় সহ্য করতেই হবে।আর হ্যা যেদিন আমার সাথে খারাপ কিছু করছে তো সেদিনই হবে এই জবের শেষ দিন। আর এই devilটাকে উচিত শিখা দেওয়ার দিনও।

মনে মনে সাইরা একথাগুলো বলছে।

নিলয় :তো দেখি তুমি কতটা ফিট? 50reps push করে দেখাও আমাকে। আর হ্যা থামলে চলবে না।একটা টানা করবে,তবেই আমি বুঝব তুমি যা বলেছ তা সত্যি। তুমি যে ফিট আমি তা মেনে নিব।

আমি(সাইরা)ঃকি?😡😡 are u mad?push-up? তাও এবার এই dress এ?

সাইরা তখন লং থ্রিপিস পড়েছিল।

নিলয়ঃstop excuse(রেগে)।পারবে না তো সেটা accept করে নাও সাইরা।

আমি (সাইরা)ঃকেন accept করব? বলেন তো ব..স,বস।

নিলয়ঃokay,fine.

সে তার একজন staffকে ডেকে সাইরার জন্য জিমের dress আনিয়ে নিল।তারপর সেটা সাইরাকে দিয়ে বলল,

নিলয়ঃchange করে এসো। আর এখন তো বলবে না যে এই dress possible নয়।

সাইরা change করে আসার পর নিলয় তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে। সাইরা কখনই t-shirt পড়ে নি।তাই তার এই পোশাকে খুবই uncomfortable feel হচ্ছে। আর সেটা নিলয়ের চোখে ঠিকই ধরা পড়ে। সে বুঝতে পেরে তার ঘাড়ে হাতে রেখে বলেন,

নিলয়ঃAh,i am so tried. আমি ভিতরে যাচ্ছি। আজ থাকা।challenge next time হবে।ভালভাবে preparation নিয়ে রেখো Miss P.A. আমি কিন্তু ছাড়ব না। মনে রেখ।

আজকের মত কাজ শেষ এখানে।এখন তুমি আসতে পার।আর হ্যা ১০টায় কিন্তু অফিস।মনে থাকে যেন।Late করবে তো তোমার কপালে কষ্ট আছে। তারপর সে হাতে নেড়ে সাইড়াকে bye জানিয়ে সে চলে যায়।

সে চলে যাওয়ার পরও সাইরা একই স্থানে পাথরের মূর্তির মত হয়ে দাড়িয়ে রয়েছে।সে কি স্বপ্ন দেখছে? নাকি এটা তার সাথে বাস্তবে ঘটেছে?সে বুঝতে পারছে না কিছুই।তাই সে নিজের হাতে চিমটি কাটে check করার জন্য ।

সাইরাঃAh।তার মানে এটা স্বপ্ন নয়, এটা সত্যিই আমার সাথে ঘটেছে।এই মানুষটা আসলে চাচ্ছেটা কি? মানুষটা যেমনটা দেখাচ্ছে আসলে কি সে তেমন?আসলে কে আপনি নিলয় স্যার?যাই হোক এসব ভাবার মত সময় এখন আমার হাতে নেই। অনেক কাজ বাকি আছে।বাসায় যাব, shower নিয়ে breakfast কর আর ঘুম, সেটা পারব না 😪😪 যদি এখন বাসায় ফিরে ঘুমাতে যাই তবে অফিসের জন্য দেরী হবে।আর দেরী হলে তো এই মানুষটা মানে আমার নিলয় স্যার Devil man হয়ে যাবেন।তখন আমার সাথে কি ঘটবে আল্লাহ মালিকই ভাল বলতে পারবেন।আহ!জীবন তুমি এমন কেন😰😰জব ছিল না যখন তখনই তো ভাল ছিলাম😞😞

10
$ 0.00
Avatar for Pami
Written by   42
2 years ago
Enjoyed this article?  Earn Bitcoin Cash by sharing it! Explain
...and you will also help the author collect more tips.

Comments

Nice

$ 0.00
2 years ago

Your article has been very nice.

$ 0.00
2 years ago

তখন আমার সাথে কি ঘটবে আল্লাহ মালিকই ভাল বলতে পারবেন।আহ!জীবন তুমি এমন কেন😰😰জব ছিল না যখন তখনই তো ভাল ছিলাম😞😞

$ 0.00
2 years ago

Very interesting your love story.... Carry on

$ 0.00
2 years ago

super story,carry on

$ 0.00
2 years ago

আপনার লিখা গল্পটা পড়ে ভালো লাগলো। সুন্দরএকএা লাভ স্টোরি লিখেছেন।

$ 0.00
2 years ago

অসাধারণ গল্প। ধন্যবাদ আপনাকে।

$ 0.00
2 years ago