Join and earn Bitcoin Cash for participation

করোনাভাইরাস

0 2 exc boost
Avatar for Khairul28
Written by   44
3 weeks ago

করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাপারে একটা দারুণ ব্যাপার চোখে পড়লো আজকে। ব্যাপারটা খুবই অদ্ভুত।

মহামরি মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা কী হবে, কীভাবে নিজেদের মানুষজনকে নিরাপদে রাখা হবে, প্রশাসন কীভাবে উদ্যোগ নেবে, বিজ্ঞানীদের কথা কীভাবে আমলে নেওয়া হবে, এই সবকিছুই আগে থেকে ভেবে চিন্তে ঠিক করে রাখা হয়েছিল। এমনকী করোনাভাইরাসের নাম উল্লেখ করে ১৫ বছর আগে তৈরী করা সেই ‘মহামারি গাইডবুকে’ স্পষ্ট বলা হয়েছিল যে এই ভাইরাসের মতো মহামারি এলে কীভাবে কী করা হবে!!

ঘটনা ২০০৫ সালের গীষ্মে। তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডাব্লিউ বুশ ছুটি কাটাতে টেক্সাসে তার খামারবাড়িতে গেছেন। অবসরে তিনি ১৯১৮ সালের ভয়াবহ স্প্যানিশ ফ্লু নিয়ে John M. Barry এর লেখা The Great Influenza বই পড়েন। সেই মহামারিতে কয়েক কোটি মানুষ মারা যায় এবং এর ফলে যে বিপর্যয়কর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল, সেটি জেনে বুশ আতঙ্কিত হয়ে যান। ওয়াশিংটনে ফিরেই তিনি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন এবং ভবিষ্যতে যদি যুক্তরাষ্ট্রে বা বিশ্বের অন্য কোথাও এই ধরণের ভয়াবহ কোনো মহামারির সৃষ্টি হয়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপ কী হবে, তা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন। ২০০৬ সালের মে মাসে ‘National strategy for pandemic influenza, implementation plan' নামের খুবই বিস্তারিত একটি কর্মপরিকল্পনা প্রকাশ করেন।

প্রেসিডেন্ট বুশ এই কর্মপরিকল্পনাকে ‘প্লেবুক অব প্যানডেমিক রেসপন্স’ নামে অভিহিত করেন। এই বইতে মহামারিতে কী কী পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে এবং কোন প্রেক্ষাপটে কী কী করা হবে, তা ধারাবাহিকভাবে এবং সুস্পষ্টভাবে লিপিবদ্ধ করা ছিল। বুশের সেই প্যানডেমিক প্লেবুকেই বলা ছিল এই রকম সময়ে নাগরিকদের মাস্ক পরতে হবে, ইনফেক্টেডদের উপর নজরদারি করতে হবে এবং নতাদেরকে অন্যদের থেকে পৃথম করতে হবে।

ওবামা ক্ষমতায় আসার পর তিনিও আরেকটি প্যানডেমিক প্লেবুক প্রকাশ করেন যেখনে স্পষ্টভাবে বেশ কয়েকবার নভেল করোনাভাইরাসের নাম উল্লেখ করে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে কী কী করতে হবে, সেটি বলা হয়েছে।

বলাই বাহুল্য এসব প্লেবুকে যেসব পদক্ষেপ ও সচেতনতার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, বর্তমান ট্রাম্প প্রশাসন তার প্রায় সবই উপেক্ষা করেছে। বর্তমান করোনাভাইরাস মহামারি থেকে সবচেয়ে বেশি সুরক্ষিত থাকার কথা ছিল যুক্তরাষ্ট্রের, আর আজ তাদেরই সবচেয়ে শোচনীয় অবস্থা। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যধি শুধু খামখেয়ালীপনা আর ঘাড়তেড়ামি না করতেন, তাহলে যুক্তরাষ্ট্রে আজকের দিন পর্যন্ত হয়তো ২ লাখ ৬ হাজার মানুষ মারা যেত না। এই মহামারি এড়ানোর মতো সবকিছুই ছিল যুক্তরাষ্ট্রের। তাদের সিডিসি এবং এফডিএ’র মতো প্রতিষ্ঠানকে সারা দুনিয়া অনুসরণ করে। যুক্তরাষ্ট্র এ যাবত পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে শক্তিশালী রাষ্ট্র, তারা পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী দেশ, তাদের বিজ্ঞানীরা এবং গবেষণাগারগুলো বিশ্বসেরা, পৃথিবীর সেরা ঔষধ কোম্পানি আছে তাদের দেশে..... এই যুগে একটা মহামারি মোকাবেলায় কী ছিল না তাদের পক্ষে! কিন্তু আফসোস...!

আমার এটা এখনো মানতে কষ্ট হয় যে যুক্তরাষ্ট্রে এই পর্যন্ত ২ লাখ ৬ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে মারা গেছে, ৭০ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছে, আরও অন্তত ২ লাখ মানুষ মারা যাবে বলে গবেষকরা সতর্ক করছেন। কতটা ডিজাস্টারাস একটা পরিস্থিতি। যুক্তরাষ্ট্রের জন্য এটা অকল্পনীয় বললেও কম বলা হবে।

3
$ 0.00
Avatar for Khairul28
Written by   44
3 weeks ago
Enjoyed this article?  Earn Bitcoin Cash by sharing it! Explain
...and you will also help the author collect more tips.

Comments